এবার দেশে তৈরি হচ্ছে অত্যাধুনিক স্বল্প মূল্যের গাড়ি ২০ মিনিট চার্জ চলবে ৪০০ কিলো

Spread the love
এবার দেশে তৈরি হচ্ছে অত্যাধুনিক স্বল্প মূল্যের গাড়ি ২০ মিনিট চার্জ চলবে ৪০০ কিলো
বাংলাদেশে গাড়ির চাহিদা ব্যাপক পরিমানে থাকার পরও উৎপাদন নেই। বিদেশ থেকে আনা রি-কন্ডিশন গাড়িই মূলত বেশি বেচাকেনা হয়ে থাকে দেশের বাজারে। গাড়ি উৎপাদনের মত বিশাল একটি খাতে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের অবদান না থাকা কিছুটা হতাশারই বটে!দেশের বাইরে থেকে গাড়ি আমদানি করার ফলে মূল ক্রয়মূল্যের চেয়ে কয়েক গুণ বেশি মূল্য দিতে হয় একজন গ্রাহককে। ফলে গাড়ী কেনার ইচ্ছে থাকলেও অনেকের সেটা থেকে যায় নাগালের বাইরে। তবে এবার সেই খরা কাটছে।
দেশেই উৎপাদন হবে প্রাইভেটকার ও মোটরসাইকেল। যার দামও থাকবে সাধারণ মানুষের হাতের নাগালে।বাংলাদেশ অটো ইন্ড্রাস্ট্রি লিমিটেড জানিয়েছে ২০২০-২১ সালে তারা ইলেকট্রনিক্স গাড়ি উৎপাদন শুরু করবে। বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন ক্ররতৃপক্ষ (বিডা) একটি বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই খবর প্রকাশ করেছে।জানা যায় চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ১০০ একর বিশিষ্ট তাদের ইকোনোমিক জোনে প্রতিষ্ঠিত প্ল্যান্টে গাড়ির ৬০ শতাংশ যন্ত্র উৎপাদন হবে। যার মধ্যে রয়েছে চেসিসি, ব্যাটারি এবং সফটওয়্যার।
প্রাথমিকভাবে এগুলোর সম্ভাব্য মূল্য ধরা হয়েছে-সেডান: ১২-১৫ লাখ টাকা।এসইউভি: ২০ লাখ টাকা।হ্যাচব্যাক: ৮ লাখ টাকার নিচে।শুধু তাই নয় তাদের তৈরি করা মোটসাইকেলের দামও থাকবে ৫০ হাজার থেকে দেড় লক্ষ টাকার মধ্যে। বাংলাদেশ অটো ইন্ড্রাস্ট্রির তৈরি এই গাড়ি একবার চার্জ করলে চার’শ কিলোমিটার পর্যন্ত যেতে পারবে।
আর প্রতি কিলোমিটারে খরচ পড়তে পারে মাত্র ২ টাকা।ইলেকট্রনিক এই গাড়িগুলো সম্পর্কে আরও জানা যায়, ৪’শ কিলোমিটার পাড়ি দেয়ার জন্য গাড়িগুলো মাত্র ২০ মিনিট চার্জ করলেই হবে। গ্রাহকদের পূর্নাঙ্গ সেবা প্রদানের লক্ষ্যে হাইওয়েগুলোতে পাওয়ার স্টেশন বানানোর কথাও রয়েছে। অন্যদিকে গাড়িরগুলোর ব্যাটারির স্থায়িত্ব ১০ বছর পর্যন্ত হবে বলেও জানিয়েছে বাংলাদেশ অটো ইন্ড্রাস্ট্রি।গাড়ি উৎপাদনের মত বৃহৎ এই শিল্পের জন্য প্রাথমিকভাবে ২০০ মিলিয়ন ডলার নিয়ে মাঠে নামার প্রস্তুতি রয়েছে বলেও জানা গেছে তাদের পক্ষ থেকে।

     More News Of This Category

ফেসবুক