ভোলা জেলায় ১৪ বছর ১০ মাস 3 দিন বয়সের কিশোরীকে কাবিন ছাড়া বিয়ে করলেন মসজিদের মোয়াজ্জেম।

ভোলা জেলা প্রতিনিধিঃ
ভোলা জেলায় ১৪ বছর ১০ মাস 3 দিন বয়সের কিশোরীকে কাবিন ছাড়া বিয়ে করলেন মসজিদের মোয়াজ্জেম। কিন্তু,মেয়েটিকে বিয়ে করেছিলেন কিনা এরকম কোন সঠিক প্রমাণ দেখাতে পারেননি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীএবং গণমাধ্যমকর্মী দিগকে ইব্রাহিম এর পরিবার।
সানজিদার মা ফাতেমা বেগম বরহানউদ্দিন থানায় গণমাধ্যমকর্মী দিগকে জানান তাহার মেয়ে সানজিদাকে দীর্ঘ এক মাস আগে ঢাকা গাজীপুর থেকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে কাউকে কিছু না বলে ইব্রাহিম নিয়ে আসে ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন থানা কুঞ্জের হাট।
সরজমিনে গিয়ে জানা যায় সানজিদা পিতা ফজলুল হক, মাতা ফাতেমা বেগম, 2 নং কাশিমপুর গাজীপুর ঢাকা। ইব্রাহিম পিতা বাসেত, মাতা মরিয়ম বেগম ,, গ্রাম রহমানপুর, উপজেলা মনপুরা। ইব্রাহিম ভোলা জেলার কুঞ্জের হাট বাজারের একটি মসজিদে মোয়াজ্জেম হিসাবে কর্মরত রয়েছেন। মোবাইল ফোনে সম্পর্কের সুবাদে মেয়েটিকে দীর্ঘ একমাস আগে নিয়ে আসেন পিতা-মাতা আত্মীয়-স্বজন এর অনুপস্থিতে।
,মেয়েটির মাতা ও বড় ভাই দীর্ঘ এক মাস পর সানজিদার খবর পেয়ে বোরহানউদ্দিন থানার কর্মকর্তাদের মাধ্যমে মেয়েটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে, মসজিদের মোয়াজ্জেম ইব্রাহিমকে সহকারে,, রাত এগারোটার সময় কিসের কারনে জানি মেয়েটি এবং ছেলেটি কে ছেড়ে দেওয়া হয় অভিবাবকদের কাছে,, মেয়েটিকে নিয়ে তাহার মাতা ও ভাই ঢাকাতে রওনা দিলে ইলিশা ফেরিঘাট থেকে মেয়েটিকে পুনরায় কিডন্যাপ করে নিয়ে যায়,কে বা কাহারা দুই পক্ষের কেউই বলতে পারে না,, উক্ত ব্যাপারে ডিজিটাল আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান ইব্রাহিমের পিতাকে মোবাইল ফোনে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন,মেয়েটিকে কে বা কাহারা জানি উঠিয়ে নিয়ে গেছে তিনি বিষয়টি থানা অবগত করেছেন। গত ৪/৫/২০২১ইংরাজি রাত পৌনে বারোটার সময়
শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এখনো মেয়েটির সন্ধান পাওয়া যায় নাই

     More News Of This Category

ফেসবুক