জাকজমক পূর্ন ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে রূপসার ঘাটভোগ ইউপি নির্বাচন সম্পান্ন হলো ; ঘাটভোগবাসীর মুখে হাসি ফোটালো স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজান ।

Spread the love

শেখ মাহাবুব আলম ইবাংলা প্রতিনিধিঃ
খুলনা রূপসা উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়ন পরিষদের অবাধ, নিরপেক্ষ, শান্তিপূর্ন সুষ্ঠ ও কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন হলো। নির্বাচনকে ঘিরে সকল প্রার্থীদের মধ্যে ছিল মানসিক টেনশন এবং সমর্থকদের মধ্যে ছিল আনন্দ ও জাকজমক পূর্ন পরিবেশ। ১৩ টি কেন্দ্রে পর্যবেক্ষন করে ও প্রিজাইডিং অফিসারদের সাথে আলাপ করে জানাগেছে সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়।

ডোবা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বিকালে ভোটারদের উপস্থিতি বৃদ্ধি পাওয়ায় ৫ টা পর্যন্ত ভোট গ্রহন অনুষ্টিত হয়। সকাল ১০ টায় আনন্দনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে কথা হয় স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান ওয়াহিদুজ্জামান মিজানের সাথে। তিনি বলেন নির্বাচনের পরিবেশ অত্যান্ত ভালো। জনগণ তাদের স্বাধীন মতো কেন্দ্রে এসে ভোট দিচ্ছে এবং আইন শৃঙ্খলা বাহিনী নিরপেক্ষ দৃষ্টি নিয়ে কাজ করছে। অপরদিকে বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে কথা হয় আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান সাধন অধিকারীর সাথে । তিনি নির্বাচনের পরিবেশে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং বলেন অবাধ এবং নিরপেক্ষ ভাবে সকল কেন্দ্রে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তিনিও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রশংসা করেন।

পিঠাভোগ ডিজিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসার তারেক ইকবাল আজিজ জানান বেলা ১১ টা ৩৩ মি. পর্যন্ত ১৭০৮ জন ভোটারের মধ্যে ৬৬৪ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছে। কেন্দ্রে কোন প্রার্থীর অপ্রীতিকর আচারন বা ঝামেলা নাই। সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে জনসাধারণ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করছে।
সাধারন জনগন ও ভোটারদের কাছে ভোট নিয়ে জানতে চাইলে তারা ভোট দেয়া নিয়ে এতটাই খুশি হয়ে জানান যে, আজকের দিনটা তারা ঈদ আনন্দের চেয়ে ও বেশি খুশি হয়েছে, সুষ্ঠ ভাবে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট প্রয়োগ করতে পেরে ।
রিটানিং অফিসার, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুর রব জানান, ১৪৬২০ জন পুরুষ, ১৪১৪৭ জন মহিলা সর্ব মোট ২৮৭৬৭ জন ভোটারের মধ্যে প্রায় ২২ হাজার ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছে। অপরদিকে নির্বাচনের সমন্বয়ক উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবাইয়া তাছনিম জানান নির্বাচনকে অবাধ ও অর্থবহ করতে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইশরাত জাহান সহ ৩ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশিষ বসাক, আব্দুল ওয়াদুদ এবং নয়ন কুমার রাজবংশী দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ওসি সরদার মোশাররফ হোসেন, নির্বাচন অফিসার মোল্লা নাসির আহম্মেদ এবং রিটার্নিং নির্বাচন পর্যবেক্ষন করেছেন।

তাছাড়া নির্বাচনে র্যাবের ৩ টি ভ্রাম্যমান টিম, পুলিশের ৫ টি ভ্রাম্যমান টিম, বিজিবি’র একটি শক্তিশালী টিম, প্রতিটি কেন্দ্রে ১ জন পুলিশ পরিদর্শক, ৪ জন কনস্টেবল সহ ২২ জন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য দায়িত্ব পালন করেছে। ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বামনডাঙ্গা কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির দায়ে রিয়াদ নামে এক যুবককে ৫ হাজার টাকা অর্থ দন্ড করেন এবং ইসলামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে শামীম ফকির নামে এক যুবককে একটি চাপাতি ও হাতুড়ি সহ আটক করেছে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বেসরকারী ভাবে সাবেক চেয়ারম্যান স্বতন্ত্র প্রার্থী মোল্লা ওয়াহিদুজ্জামান মিজান নির্বাচিত হয়েছেন বলে ভাবে জানা গেছে।

     More News Of This Category

ফেসবুক