খুলনা দিঘলিয়া উপজেলার হাজীগ্রাম আতাই নদীর তীরে ইট ভাটার কারণে সরকারি রাস্তার বেহাল অবস্থা, জন চলাচলে চরম দুর্ভোগ।

Spread the love

খুলনা বিভাগীয় বিশেষ প্রতিনিধিঃ খুলনা দিঘলিয়া উপজেলার হাজীগ্রাম আতাই নদীর পশ্চিম পাড় ঘেসে গড়ে উঠেছে মেসার্স কেবিএম নামক ইট ভাটা। সারা বছর এ ইট ভাটার ইট ভর্তি পরিবহন গুলো চলাচল করার কারণে সাধারণ মানুষের চলাচল রাস্তার বেহাল অবস্থা। জন চলাচলে চরম দুর্ভোগ। প্রতিকার চেয়েও প্রতিকার পায়নি এলাকাবাসী। এলাকার একটা স্বার্থান্বেষী প্রভাবশালীমহলের কারণে ইটভাটা মালিক বেপরোয়া।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, দিঘলিয়া উপজেলার সেনহাটি ইউনিয়নের হাজীগ্রামের বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে মেসার্স কেবিএম ও মেসার্স সান ব্রিকস এর মালিক যথাক্রমে খান মজলিস ও মোঃ পারভেজ জমি বন্দবস্ত নিয়ে ইটভাটা গড়ে তোলেন। তাঁরা নদীর পলি ভাটায় (জোয়ারের পানি) ঢোকানোর জন্য একদিকে যেমন এলাকায় নদী ভাঙ্গন যেমন প্রবল করছে, অপর দিকে ঘেরে মাটি ও বালি কাটার কারণে নদী পাড়ের সরকারি রাস্তা ধ্বংস করছেন। অপর দিকে ভাটায় তৈরি ইট ভর্তি ট্রাক সারা বছর চলাচল করার কারণে এলাকার জনগুরুত্বপূর্ণ ৫ কিমি সরকারি রাস্তাটি জন চলাচল ও গন পরিবহন চলাচলের অযোগ্য করে ফেলেছে। রাস্তার উপর বড় বড় গর্ত হয়ে গেছে। রাস্তার ইটের সোলিং ভেঙ্গে ও নিচে ডেবে অদৃশ্য হয়ে পড়েছে। এলাকাবাসী কয়েকবার প্রতিকার চেয়েও প্রতিকার পাননি বলে জানা গেছে।

এলাকাবাসী আরও জানান, মেসার্স সান ব্রিকসের মালিক মোঃ পারভেজ জমির বন্দবস্ত হারানোর কারণে ইটভাটা বন্ধ রয়েছে। কিন্তু মোঃ খান মজলিস বহাল তবিয়তে মেসার্স কেবিএম ইট ভাটার জনদাবী উপেক্ষা করে কার্যক্রম পরিচালনা করে চলেছেন। এলাকার বিজ্ঞমহলের জিজ্ঞাসা সরকারি লাখ লাখ টাকার সরকারি রাস্তাটি ক্ষতিসাধন করার পরও উক্ত ইটভাটা চলে কি করে? এলাকাবাসী জনচলাচলের রাস্তাটি দ্রুত মেরামত ও জনদুর্ভোগ সৃষ্টিকারী ইটভাটাটি বন্দের দাবী জানিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

     More News Of This Category

ফেসবুক