আবহমান বাংলার ঐতিহ্য ধরে রাখতে প্রতি বছরের মতো এবারও খুলনার রূপসা নদীতে ‘ফ্যান্টাস্টিক ১৪ তম খুলনা নৌকা বাইচ’ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

ঢেউয়ের কলতান, হেইয়োরে হেইয়ো আর সারিবদ্ধ বৈঠার ছলাত ছলাত শব্দে উত্তাল হয়ে উঠেছিল খুলনার শান্ত রূপসা নদী। আর দু’পাড়ের লাখো দর্শকের করতালিতে পরিবেশ হয়ে ওঠে উৎসবমুখর। শীতের বিকেলের মিষ্টি রৌদে গ্রাম বাঙ্গলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ উপভোগ করেন খুলনাসহ দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ।
আবহমান বাংলার ঐতিহ্য ধরে রাখতে প্রতি বছরের মতো এবারও খুলনার রূপসা নদীতে ‘ফ্যান্টাস্টিক ১৪ তম খুলনা নৌকা বাইচ’ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। শিল্প প্রতিষ্ঠান আকিজ বেকার্স লিমিটেডের পৃষ্ঠপোষকতায় শনিবার খুলনা নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র এ নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।
দুপুর ২টায় নগরীর ২নম্বর কাস্টমঘাটে বেলুন উড়িয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন ঘোষণা করেন খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।
সোয়া ২টায় রূপসা নদীর নম্বর কাস্টম ঘাট থেকে পীর খানজাহান আলী (র.) সেতু পর্যন্ত নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত হয়। খুলনার দিঘলিয়া, কয়রা, নড়াইল, মাগুরা ও গোপালগঞ্জের ১২টি নৌকা বাইচের দল প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। বাইচ চলাকালীন দ্বিতীয় রাউন্ড শেষে দিঘলিয়ার ‘সোনার বাংলা’ নৌকাটি মাঝ নদীতে ডুবে যায়। তবে, কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।
এদিকে, উৎসবমুখর এ নৌকা বাইচ দেখতে রূপসার দু’ তীরে হাজার হাজার দর্শনার্থী জড়ো হয়। তারা তীরবর্তী ভবনের ছাদ, বিভিন্ন ঘাট এবং নৌযানের ওপর বসে বাইচ উপভোগ করেন। এ সময় বাইচ নির্বিঘ্ন করতে নদীতে জেলা পুলিশ, নৌ পুলিশ, নৌবাহিনী ও কোস্টগার্ডসহ আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা টহল দেয়।

ভিডিও দেখতে ভিডিওর উপর ক্লিক করুন

এবারের প্রতিযোগিতায় বড়ো গ্রুপে প্রথম পুরস্কার লাভ করে খুলনার সুন্দরবন সংলগ্ন কয়রা উপজেলার মহেশ্বরীপুরের সুন্দরবন টাইগার। দ্বিতীয় হয়েছে মাগুরা টাইগার ও তৃতীয় তেরখাদা উপজেলার ভাই ভাই জলপরি। এছাড়া ছোটো গ্রুপে প্রথম হয়েছে রিয়া নৌকা বাইচ দল। দ্বিতীয় ও তৃতীয় হয়েছে যতাক্রমে কপোতাক্ষ তুফান ও কপোতাক্ষ পক্ষ্মীরাজ।
নৌকা বাইচ শেষে বিজয়ী প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অর্জকারী বাইচ দলকে পুরস্কৃত করা হয়। প্রতিযোগিতার প্রথম পুরস্কার ছিল ১ লাখ টাকা, দ্বিতীয় পুরস্কার ৬০ হাজার টাকা এবং তৃতীয় পুরস্কার ছিল ৩০ হাজার টাকা।
এর আগে নৌকা বাইচ উপলক্ষ্যে শনিবার সকালে নগরীতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মো. ইসমাইল হোসেন। উপস্থিত ছিলেন খুলনা জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফ-উজ-জামান, আকিজ বেকার্স লিমিটেডের চিফ মার্কেটিং অফিসার শফিকুল ইসলাম তুষার, নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সভাপতি মোল্লা মারুফ-আল-রশিদ, সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান রহিম প্রমুখ।

     More News Of This Category

ফেসবুক