আশুলিয়ায় ভোট কারচুপি’ দেখে কাঁদতে কাঁদতে বেরিয়ে গেলেন প্রার্থী

আশুলিয়া প্রতিনিধিঃ ঢাকার সাভারের একটি ইউনিয়নে নিজ চোখে ভোট কারচুপি দেখার অভিযোগ তুলে কেন্দ্র থেকে কাঁদতে কাঁদতে বেরিয়ে গেছেন লেহাজ উদ্দিন নামে এক মেম্বার প্রার্থী। এ ঘটনায় তিনি নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে মৌখিক অভিযোগ করেন।
পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বুধবার দুপুরে সাভারের আশুলিয়া ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডে ওই ঘটনাটি ঘটেছে।
ইবাংলাকে ওই মেম্বারপ্রার্থী বলেন, ‘আশুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোট চলছিল। কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে দেখি, ফুটবল মার্কার প্রার্থী হেলাল ব্যাপারী প্রিসাইডিং অফিসারের কক্ষে এক কোনায় বসে তার মার্কায় সিল মারছেন। ঘটনাটি দেখে কান্না ধরে রাখতে পারিনি।’
কারও কাছে অভিযোগ দিয়েছেন কি না, এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘সাভার উপজেলা নির্বাচন কমিশনার এসেছিলেন, তাকে জানিয়েছি। ৩০০ ভোট বাতিল করার জন্য নাকি উনি বলে গেছেন শুনলাম। এখন বাকিটা তো না গুনলে বলতে পারব না।’
একই ওয়ার্ডের আপেল প্রতীকের মেম্বার প্রার্থী মশিউর রহমানও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হেলাল ব্যাপারীর বিরুদ্ধে সিল মারার অভিযোগ করেন।
তিনি বলেন, ‘মেম্বার পদে ফুটবল মার্কায় জোরপূর্বক সিল মারা হয়েছে। এতে বাধা দিলে আমার এক কর্মীকে মারধর করা হয়। আমি এই ভোট বন্ধের দাবি জানিয়েছি।’
তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মেম্বার প্রার্থী হেলাল ব্যাপারী।
এ বিষয়ে আশুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার হারুন অর রশিদ বলেন, ‘ওই সময়টিতে নৌকার প্রার্থীর লোকজন এসে জোরপূর্বক নৌকায় সিল মারছিলেন। বারবার নিষেধ করার পরও তারা শোনেননি। ওই ঝামেলার মুহূর্তেই কক্ষের এক কোনায় বসে ফুটবল প্রতীকে কেউ একজন সিল মারছিলেন। তবে একটি মুড়ির ৮-১০টি ব্যালটে সিল মারতে পেরেছিলেন তিনি। পরে আমরা সেগুলো বাতিল করেছি।’

     More News Of This Category

ফেসবুক