পাইকগাছায় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও সোর্স সেলিমের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন।

Spread the love

পাইকগাছা প্রতিনিধিঃ খুলনার পাইকগাছা থানার হরিঢালী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আয়ুব আলী ও সোর্স তালিকা ভুক্ত সন্ত্রাসী সেলিম হাজরা কথিত মোবাইল চুরির অভিযোগ এনে নগর শ্রীরামপুর গ্রামের সোহান কে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গাছে বেঁধে মারপিট পরবরর্তীতে গাঁজা দিয়ে থানায় নিয়ে মার পিট করে গুরুতর আহত অবস্থায় মাদক মামলায় কোর্টে প্রেরণ করায় এক অসহায় মায়ের পাইকগাছা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে। শনিবার দুপুরে পাইকগাছা প্রেসক্লাবে জনাকীর্ণ এক সাংবাদিক সম্মেলনে পাইকগাছা থানার নগরশ্রীরামপুর গ্রামের মইনুদ্দীন হাজরার স্ত্রী নাজমুন নাহার লিখিত বক্তব্য বলেন, প্রতিবেশী পুলিশের সোর্স, তালিকা ভুক্ত সন্ত্রাসী, নাশকতা সহ একাধিক মামলার আসামি সেলিম হাজরার সাথে গোলমাল চলে আসছে। তারোই জের ধরে ৪/১/২২ তারিখ সকালে মোবাইল চুরি অভিযোগ তুলে সেলিম হাজরা, ছেলে সনি, মেয়ে মুনা, ভাইপো জীম আমার ছেলে সোহানুর রহমান সোহান কে ধরে নিয়ে তাদের বাড়িতে গাছে বেঁধে মারপিট করে। পরে হরিঢালী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আয়ুব আলী কে এনে তার হাতে তুলে দেয়।

পুলিশ আমার ছেলে কে ফাড়ীতে নিয়ে নির্যাতন করতে থাকে। এসময় সোহানের কাছে একটি মানিব্যাগ পাই। তাতে ৬৩০ টাকা ছিল যেটা আমার কাছে দিয়ে দেয়। মারপিটের সোহান অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরবরর্তীতে দারোগা আয়ুব আলী ৫০ গ্রাম গাঁজা দিয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। যার নং ৫ তাং৪/১/২২ ।যে গাঁজা জব্দ তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে সেখানে সেলিম হাজরা ও তার ভাইপো জীম স্বাক্ষী রয়েছে। ছেলে কে নির্যাতন, হয়রানি ও মিথ্যা মামলা দিয়ে জেল হাজতে রাখার প্রতিবাদে ও দারোগা আয়ুব আলী এবং তালিকা ভুক্ত সন্ত্রাসী পুলিশের সোর্স সেলিম হাজরার তদন্ত পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে প্রসাশনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন অসহায় মা নাজমুন নাহার। এ ছাড়া দারোগা ও সেলিম হুমকি ধামকি দিচ্ছে। আমার পরিবার নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছে বলে সংবাদমাধ্যম বলেন।

     More News Of This Category

ফেসবুক