বটিয়াঘাটা ভান্ডারকোটে লবণ পানি তুলে তরমুজ চাষীদের ভরা ডোবানোর প্রচেষ্টায় মামলা পাল্টা মামলা।

Spread the love


স্টাফ রিপোর্টারঃ

খুলনা বটিয়াঘাটা উপজেলার ০৫ নং ভান্ডারকোট ইউনিয়নের হালিয়া গ্রামের হতদরিদ্র চাষীদের কষ্টার্জিত তরমুজ ক্ষেতে সম্পূর্ণ বেআইনি ভাবে লবনাক্ত পানিতে ডুবিয়ে দিয়ে হয়রানি করার প্রচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।ভুক্তভোগী চাষীরা বলেন, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর তরমুজের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে।আমাদের মধ্যে অনেকেই বিভিন্ন এনজিও,ব্যাংক,ও জমির বন্ধকীর মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহ করে অনেক কষ্ট করে তরমুজ চাষ করে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছি।কিন্তু সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন না করতে দেয়ার জন্য একদল মুখোশধারী দুর্বৃত্তদের হুমকি ধামকি ও তাদের করা মিথ্যা মামলায় হয়রানির শিকার হচ্ছি।এখানে আমরা অধিকাংশ হতদরিদ্র ও হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ হওয়ায় বছরের পর বছর ধরে প্রতিপক্ষের নির্যাতনের শিকার হয়ে আজ বড় ক্লান্ত।পশ্চিম হালিয়ার সুশেন মন্ডলের পুত্র সুমন মন্ডল(৩৪) বলেন,

আমরা পূর্ব হালিয়া ও পশ্চিম হালিয়া কৃষকগন আমাদের বাড়ীর পাশে গোগের খাল থেকে মিষ্টি পানি নিয়ে প্রায় ৮০০ বিঘা জমিতে তরমুজ চাষসহ বিভিন্ন ফসলাদি উৎপাদন করে আসছি।বর্তমানে উক্ত খালে বিএনপি-জামায়াত ক্যাডারদের পরামর্শে উক্ত খালে লবণ পানি উঠানোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল।তিনি আরও বলেন,আমরা সকলের পরামর্শ অনুযায়ী সঠিক বিচার পাওয়ার আশায়-উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, নির্বাহী কর্মকর্তা,মৎস্য কর্মকর্তা,পুলিশ সুপার এবং জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নিকট অভিযোগ দায়ের করি,এই মর্মে ভান্ডারকোটের মৃত ইউসুফ আলী মোল্লার পুত্র বিএনপি নেতা (সাবেক চেয়ারম্যান) জনাব ইসমাইল হোসেন বাবু মোল্লা(৪৫)এর নেতৃত্বে গত ২৯শে মার্চ ইং তারিখে লক্ষিখোলা মোসলেম শেখের পুত্র মাস্টার ওলিউল্লাহ শেখ(ওলি)ও ভাড়াকরা গুন্ডাবাহিনীসহ ৫০/৬০ জন আচম্কা ০৬ নং ওয়ার্ড পশ্চিম হালিয়া গ্রামস্থ গোগের খালের গোড়ায় সন্ধ্যা আনুঃ ০৬:৪৫ মিনিটের সময় দেশীয় অস্ত্র নিয়ে খাল কেটে লবণ পানি উঠানোর চেষ্টা করে।কৃষকেরা বাধা প্রদান করলে এলোপাথাড়ি বেধড়ক মারধর করে তাতে অনেকেই আহত হয়।গ্রাম থেকে উৎসুক জনতা ছুটে আসতে দেখে ভয় পেয়ে সন্ত্রাসীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।আমরা আহতদের দ্রুত চিকিৎসা কেন্দ্র নিয়ে সুস্থ করাই।পরদিন,

গত ১৩ই এপ্রিল ইসমাইল হোসেন বাবু মোল্লার কু-পরামর্শ অনুযায়ী মৃত মোসলেম উদ্দিন শেখের পুত্র এস এম ওলিউল্লাহ (৫৪)বাদী হয়ে আমার সহ ৫০/৬০ জনের নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।এমতাবস্থায় আমরা গ্রামের হতদরিদ্র তরমুজ চাষীরা সকল প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করার পাশাপাশি তদন্তপূর্বক দোষীদের দ্রুত দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি যেন তারা ভবিষ্যতে এ ধরনের মিথ্যা জঘন্য অপরাধ করে সফল না হতে পারে।অপর দিকে ভুক্তভোগী চাষীদের প্রধান আসামি এস এম ওলিউল্লাহ শেখ (৫৪) তার বক্তব্যে বলেন,এই অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা,বানোয়াট ও ভিত্তিহীন।বরং দীর্ঘদিন যাবৎ আমার দখলীয় ইজারাকৃত খালটি জোর পূর্বক ভাবে হাতিয়ে নিয়ে মিথ্যা অপপ্রচারের পাশাপাশি ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিল করার উদ্দেশ্যে নির্দোষ ব্যক্তিদের মামলা দিয়ে হয়রানি করার চেষ্টা করছে।নিজেরাই সন্ত্রাসী বাহিনী কর্তৃক হামলা চালিয়ে আবার নিজেরাই নাটক সাজিয়ে মিথ্যা মামলা করেছে।চলমান মামলায় এক্ষেত্রে আমার তথ্য প্রমাণ সংযুক্ত করে বিজ্ঞ আদালতে সংযুক্ত করেছি।বর্তমান নির্বাচিত চেয়ারম্যান মোঃ ওবায়দুল্লাহ শেখ ওবায়দুল বলেন,আমি জনগনের সুখে সুখী আর জনগণের দুঃখে দুঃখী। ছোট থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারণ করে বড় হয়েছি এবং যতদিন বাঁচবো ততদিন ধারন করবো।তিনি বলেন,গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার এই সোনার বাংলাদেশ গড়তে জনগণের পাশে থেকে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি।যেকোন ভাবেই অপশক্তির হাত থেকে জনগণের জান মালের মুক্তি দিতে সর্বোচ্চ পদক্ষেপ গ্রহণ করবো ইনশাআল্লাহ।

     More News Of This Category

ফেসবুক